Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

 

১) চার পর্বে ১৪টি ইউনিয়নে ২৯টি মৌজায় দাগ্গুচ্ছ জরীপ কার্য পরিচালনা করে তার তথ্য সদর দফতরে প্রেরন নিশ্চিত করা হয়।

২) ৫টি প্রধান ফসল আউশ, আমন, বোরো, পাট ও আলু ফসলের আয়তন, একরপ্রতি ফলন ও উৎপাদনের হিসাব মাঠপর্যায়ে প্রাক্কলন করে তার তথ্য ও উপাত্ত সংগ্রহ করে তা সদর দফতরে সময়সুচী অনুযায়ী প্রেরন নিশ্চিত করা হয়।

৩) এগ্রিকালচার উইং (BBS) এর ১১৫টি অপ্রধান ফসলের হিসাব মাঠপর্যায়ে প্রাক্কলন করে।

উপজেলা পরিসংখ্যান অফিস মাঠ পর্যায়ে ইউনিয়ন ভিত্তিক কৃষক সাÿাতকারের মাধ্যমে বিভিন্ন ফসলের আয়তন, একরপ্রতি ফলন ও উৎপাদনের হিসাব সংগ্রহপূর্বক সদর দফতরে প্রেরন নিশ্চিত করা হয়।

৪) ফসলের পরিসংখ্যান ছাড়াও এগ্রিকালচার উইং (BBS) নিমণলিখিত বিষয়ের হিসাব নিরম্নপন করে থাকেঃ

ক) ভুমির ব্যবহার ও সেচ পরিসংখ্যান।

খ) গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগীর পরিসংখ্যান।

গ) বন জরীপ।

ঘ) মাছ উৎপাদন পরিসংখ্যান।

ঙ) মাসিক কৃষিমজুরী পরিসংখ্যান।

চ) প্রধান ফসলের মুল্য ও উৎপাদন খরচের সব তথ্য সংগ্রহের জন্য ১৪প্রকার তফসীল ও ৩প্রকার সংকলন ফর্ম ব্যবহার করা হয়।

৫) বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যূরোর সেন্সাস উইং প্রতি ১০ বছর পর পর জাতীয় আদম শুমারী অনুষ্ঠিত করে আসছে। উপজেলা পরিসংখ্যান অফিস, শ্রীনগর, মুন্সীগঞ্জ উপজেলার আদম শুমারীর সকল প্রকার অফিসিয়াল ও মাঠ পর্যায়ের কাজ নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে সুচারম্ন রূপে সম্পন্ন করতে সচেষ্ট থাকে।

৬)  আদম শুমারীর মত কৃষি উইং ৮ বছর পর পর কৃষি শুমারী অনুষ্ঠিত করে থাকে। উপজেলা পরিসংখ্যান অফিস, শ্রীনগর, মুন্সীগঞ্জ উপজেলার কৃষি শুমারীর দায়ীত্ব যথাযথভাবে পালন করে।

৭) বিবিএস বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ধরনের শুমারী ও জরীপ যেমন, অর্থনৈতিক শুমারী, তাঁত শুমারী, ÿুদ্র ও কুটির শিল্প জরীপ ইত্যাদি অনুষ্ঠিত করে থাকে এবং যথারীতি উপজেলা পরিসংখ্যান অফিস, শ্রীনগর, এতে তাদের উপর অর্পিত দায়ীত্ব পালন করে থাকে।

৮) স্যাম্পল ভাইটাল রেজিষ্ট্রেশন সার্ভে (SVRS) নামক একটি প্রকল্পের মাধ্যমে এই উপজেলার বিভিন্ন (SVRS) স্পট হ’তে স্থানীয় রেজিষ্ট্রারের মাধ্যমে মাসিক, ত্রৈমাসিক, অর্ধ বাৎসরিক ও বাৎসরিক জন্ম, মৃত্যু, বিয়ে, আগমন-বহির্গমন সংক্রামত্ম তথ্যাদি সংগ্রহপূর্বক  দর দফতরে প্রেরন করা হয়।

৯) অতি-বৃষ্টি/অনাবৃষ্টি / ঘুর্নিঝড়/বণ্যা /শিলা বৃষ্টি, পোকার আক্রমনের কারনে ফসলের উল্লেখযোগ্য ক্ষয়-ক্ষতি হ’লে তফসীল ১১ পুরন করে ত্বরিত প্রেরনের ব্যবস্থা করা হয়।

১০) উপরোক্ত কর্মকান্ড ছাড়াও উর্ধ্বতন কতৃর্পক্ষের আদেশ অনুযায়ী বিভিন্ন দায়ীত্ব সম্পন্ন করা হয়।